৭ মাস পর বড়ছড়া স্থল শুল্ক স্টেশন দিয়ে কয়লা এলো

দীর্ঘ সাতমাস পর আবারও বড়ছড়া শুল্ক স্টেশন দিয়ে ভারতের কয়লা নামলো।

করোনা মহামারীর কারণে গত মার্চ মাস থেকে বুধবার (১৪ অক্টোবর) পর্যন্ত দেশের উত্তর পূর্বাঞ্চলের ৩ বৃহৎ শুল্কবন্দর বন্ধ ছিল। বন্ধের পর বৃহস্পতিবার বিকালে প্রথম ৫ গাড়ী কয়লা নেমেছে বড়ছড়া শুল্ক স্টেশন দিয়ে। সংশ্লিষ্টরা বলেছেন, তারা আশা করছেন কয়লা নামা অব্যাহত থাকবে।

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর সীমান্তের বড়ছড়া, চারাগাঁও ও বাগলী শুল্ক স্টেশন দিয়ে কয়লা ও পাথর আমদানী হয় ভারতের মেঘালয় থেকে। দেশের উত্তর-পূর্বঞ্চলের বড় শুল্ক স্টেশন এগুলো। এই শুল্ক স্টেশন গুলোতে নানাভাবে কর্মরত থাকেন ৫০ হাজারেরও বেশি শ্রমিক। গত মার্চ মাস থেকে করোনার কারণে এই তিন শুল্ক স্টেশন দিয়ে আমদানী বন্ধ। এ কারণে বেকার হয়ে আছেন এসব শ্রমিকরা।


তাহিরপুর কয়লা আমদানী কারক গ্রুপের সদস্য সচিব রাজেশ তালুকদার জানান, ভারতের ন্যাশনাল গ্রীণ ট্রাইব্যুনাল মার্চের প্রথম সপ্তাহে মেঘালয়ের ২ লাখ টন উত্তোলিত কয়লা মৌখিক চালানের ভিত্তিতে রপ্তানী করার আদেশ দিয়েছিলেন। মেঘালয়ে ৩২ লাখ টন উত্তোলিত কয়লাও রয়েছে। এরমধ্যে ২ লাখ টন কয়লা রপ্তানী করার সুযোগ পেয়েছিলেন রপ্তানী কারকরা। কিন্তু করোনার কারণে আমদানী-রপ্তানী বন্ধ থাকায় এই কয়লা আসে নি। বৃহস্পতিবার ৫ গাড়ী কয়লা আমদানী হয়েছে। রপ্তানী কারকরা জানিয়েছেন, প্রথমদিন কম আসলেও কাল থেকে রপ্তানী বাড়াবেন তারা।

বড়ছড়ার রাজস্ব কর্মকর্তা সুদীপ্ত শেখর দাস জানালেন, ৭ মাসের বেশি সময় পর বৃহস্পতিবার ৫ ট্রাক কয়লা আমদানী হয়েছে। আমরা আশা করছি আমদানী অব্যাহত থাকবে।

সুনামগঞ্জমিরর/এসপি

শেয়ার করুন