গৃহসজ্জায় গাছ: সবুজে হোক একটুখানি প্রশান্তি

সারাদিনের ক্লান্তি শেষে সবাই ঘরে ফেরে। সেই ঘরটাকে সবাই সাজায় মনমতো। কিন্তু গতানুগতিক আসবাবপত্রের সাথে সাথে ঘরটাকে সাজানো যায় অন্যভাবেও। ঘর যেমন আরামের জায়গা তেমনি দুফোঁটা শান্তিরও। শহুরে যান্ত্রিকতায় সেই শান্তি কোথায়?

কথায় আছে সবুজে মেলে শান্তি। আর তাই ঘরের ভেতরে বিভিন্ন ধরনের গাছ দিয়ে তৈরি করতে পারেব খানিকটা শান্তি। কিন্তু ঘরে গাছ লাগানোর আগে ঘরের আয়তন, ডিজাইন, আসবাবের ধরণ সবকিছুর সাথে মানানসই হলে পালটে যাবে গোটা ঘরের সৌন্দর্যই। চলুন দেখা যাক কিভাবে সবুজের সমারোহে সাজানো যায় ঘর—

১.ঘরের প্রবেশপথে রোদছাড়া বাঁচতে পারে এমন ছোটছোট ফুল কিংবা লতার গাছ লাগাতে পারেন। ঘরে ঢুকেই অতিথিরা পরিচয় পাবে সুরুচির।

২. বেডরুমে বিছানার পাশেও কিন্তু লাগানো যায় গাছ। হালকা আলো আসে এমন জায়গায় ছোট কিছু সবুজ মানিপ্ল্যান্ট জাতের গাছগুলো আপনার বেডরুমে এনে দিতে একটু প্রশান্তি।

৩. গৃহের সৌন্দর্যের মূল ব্যাপারটি যেন বসার ঘরকে কেন্দ্র করে। আমরা এই বসার ঘরটিতে কত রকমের দেশী-বিদেশী শো-পিস দিয়েই তো সাজাই। কিন্তু আয়তন, আকৃতির বা প্রাকৃতিক দিক চিন্তা করে যদি একবার ফুল-লতা-পাতা অর্থাৎ সবুজ গাছ-পাতা দিয়ে সাজাতে পারি তাহলে একই সাথে ঘরের সৌন্দর্য বৃদ্ধি এবং পরিবেশ বান্ধব উভয় ব্যাপারের সমন্বয় ঘটবে। আর বসার ঘরে মানিপ্ল্যান্ট বা ছোট আকৃতির গাছ থাকলে দেখতেও বেশ ভাল লাগবে।

৪. খাবার ঘরটিতে যদি ছোট একটা টবে লেটুস বা ধনে পাতার মত গাছ রোপণ করতে পারেন তবে এর সুগন্ধে খাবার সময় আপনার ভালো লাগাটা বাড়বে বৈকি কমবে না! এছাড়া অন্য কোন গাছের ব্যবহারও বাড়িয়ে দিতে পারে আপনার ডাইনিং রুমের শোভা।

৫. আপনার রান্না ঘরে যদি অল্প জায়গা থাকে তাহলে সেখানেই একটা মরিচ গাছ লাগিয়ে দিন। নিজের হাতে লাগানো গাছের দু’টি মরিচ সালাদ করে খেয়ে দেখুন কী অমায়িক তৃপ্তি পাচ্ছেন! সুতরাং এই স্বাদ নিতে ভুল করবেন না যেন।

৬. শহুরে মানুষের তো আর উঠান নেই, উঠানজুড়া ফুল গাছ কিংবা লেবু গাছও নেই। কিন্তু শহুরে মানুষের আছে ব্যালকনি। সেই ব্যালকনিই হতে পারে গাছ লাগানোর আদর্শ জায়গা। ফুলে ফুলে,গাছে গাছে ভরিয়ে তুলতে পারেন আপনার ব্যালকনিকে।ভাবুন তো ব্যালকনিতে বসে এক মগ কফি খাচ্ছেন জোছনা দেখতে দেখতে, ঠিক তখনই নাকে একটা মিষ্টি গন্ধ এলো আপনার ব্যালকনিতে লাগানো কোনো নাম না জানা ফুলের, কি দারুণ হবে তাই না?

৭. আপনার যদি একটা ছাদ থাকে সেটা একটা বাড়তি পাওনা। ছাদে ফুলের পাশাপাশি লাগিয়ে দিতে পারেন বিভিন্ন সবজির গাছও। চাইলে আমা,কমলা, লেবু এসবের গাছও লাগানো যায় সঠিক উপায় ফলো করে।

কিন্তু শুধু গাছ লাগালেই হবে না, গৃহসজ্জায় গাছ লাগাতে হলে একটু বাড়তি সতর্কতারও প্রয়োজন আছে। লক্ষ্য রাখতে হবে যেন আপনার টবের গোঁড়ায় পানি না জমে। এছাড়া গাছগুলো যদি ছায়ায় রাখা হয় তাহলে সময় করে মাঝে মাঝে গাছগুলো কিছু সময়ের জন্য রোদে দিতে হবে। গাছের পরিচর্যা করলে মানসিক প্রশান্তিও মিলে। আর কথায় আছে যারা গাছ ভালোবাসে তারা ভালো মনের অধিকারী হয়। শহুরে এই যান্ত্রিকতা থেকে মুক্তি দিবে আপনারই হাতে রোপণ করা গাছগুলো। তাহলে আর দেরী কেন, তৈরী করে ফেলুন নিজ প্রশান্তির জায়গাটুকু।

  • বর্ষা রায় চৌধুরী, সহকারী সম্পাদক, সুনামগঞ্জ মিরর

সুনামগঞ্জমিরর/বর্ষা/টিএম

শেয়ার করুন