‘যতদিন জনগণ চাইবে ততদিন আমরা মানুষের কাজ করবো’

বিএনপি অহেতুক কথা বলে মানুষের শান্তি নষ্ট করতে চায় বলে মন্তব্য করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার জগদল ২০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল উদ্বোধনকালে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা ব্রিটিশ বেনিয়া নয়, একদফা দিয়ে আমাদের তাড়িয়ে দেবেন। জনগণের ভোটে আমরা ক্ষমতায় এসেছি। যতদিন জনগণ চাইবে ততদিন আমরা মানুষের কাজ করবো। বিএনপির কথায় কান না দিয়ে বাংলাদেশকে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরতে চাই।’

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ দেশ স্বাধীন করেছে। দেশের মানুষের ভোটে বিজয়ী হয়ে দেশ শাসন করছে। দেশের মানুষ জানে আওয়ামী লীগের শাসনামলে যে উন্নয়ন হয়েছে, তা আর কোন সরকারের সময়কালে হয় নি।’

এসময় সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি নুরুল হুদা মুকুট, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সাবেক যুগ্ম-সচিব মিজানুর রহমান, সুনামগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. শামস উদ্দিন, সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান খায়রুল হুদা চপল, দিরাই পৌরসভার সাবেক মেয়র মোশারফ মিয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, জগদল ইউনিয়নের ৩৭টি গ্রামের মানুষের স্বাস্থ্যসেবার সুযোগ করে দিতেই ২০০৬ সালে জগদল গ্রামের বাজারের পাশে ২০ শয্যার একটি হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেন জগদল গ্রামের সন্তান ও কুমিল্লার তৎকালীন জেলা প্রশাসক মিজানুর রহমান। এরপর প্রায় চার কোটি টাকা ব্যয়ে হাসপাতালের জন্য জমি অধিগ্রহণ, পাঁচটি পাকা ভবন, পাম্প হাউস, গ্যারেজ, সীমানাপ্রাচীর নির্মাণ করা হয়। ২০১৩ সালের ২৩ অক্টোবর এটির উদ্বোধন করেন সুনামগঞ্জ-২ আসনের (দিরাই-শাল্লা) তৎকালীন সাংসদ ও মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত ও প্রধানমন্ত্রীর তৎকালীন উপদেষ্টা ডা. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী। তবে সেসময় এটি উদ্বোধন করা হলেও নানা কারণে চালু হয়নি স্বাস্থ্যসেবা।

এদিকে, হাসপাতাল উদ্বোধনের আগে শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে দিরাই উপজেলা গণমিলনায়তনে ফসল রক্ষাবাঁধ নির্মাণের অগ্রগতি ও সার্বিক আইন শৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমএ মান্নান বলেন, আমার বাড়ি যেখানেই থাকুক না কেন, আমি সুনামগঞ্জের সন্তান । আমি সারা জেলার উন্নয়ন করব। আর দেশের উন্নয়নের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে কাজ করে যাচ্ছি। দিরাই-শাল্লার উন্নয়ন করতে হলে এখানকার সংসদ সদস্যের সহযোগিতার দরকার। আমি এখানে আসার আগে তাঁর সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছি। কিন্তু তাঁকে পাইনি।

দিরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহমুদুর রহমান মামুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় পরিকল্পনামন্ত্রী আরও বলেন, আমাদের মাথায় অনেক বড় বড় পরিকল্পনা ঘুরছে। পদ্মা সেতু, সুনামগঞ্জের রানীগঞ্জ সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে।

তিনি বলেন, দিরাই-শাল্লা-আজমিরিগঞ্জ ও বানিয়াাচং হয়ে হবিগঞ্জ গিয়ে সড়ক সংযুক্ত হবে। সেই লক্ষ্যে আমরা কাজ করছি। হাওরের উড়াল সেতু হচ্ছে। ছাতক থেকে সুনামগঞ্জ রেল লাইন নির্মাণ হবে। সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়সহ সকল কাজ ঠিক সময়েই হবে । অযথা সমালোচনার দরকার নেই।

মন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনার সরকার কৃষিতে বিনিয়োগ করার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে দারিদ্রতাকে কমিয়ে আনা। সম্পূর্ণ নির্মূল করা হয়তো সম্ভব হবে না। তবে আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি। তিনি বলেন, কৃষির অগ্রগতির জন্যই সরকার বোরো ফসল রক্ষাবাঁধের জন্য প্রতি বছর প্রচুর অর্থ দিচ্ছে। বাধেঁর কাজ সঠিক ভাবে সম্পন্ন করতে হবে।

মতবিনিময় সভায় অন্যান্যে মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন, সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি নূরুল হুদা মুকুট, দিরাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মঞ্জুর আলম চৌধুরী, সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা যুবলীগ আহ্বায়ক খায়রুল হুদা চপল, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাহেব আলী পাঠান, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সৈয়দ আবুল কাশেম, দিরাই পৌরসভার সাবেক মেয়র মোশারফ মিয়া, দিরাই উপজেলা যুবলীগ আহ্বায়ক রঞ্জন রায়, কৃষক লীগ সভাপতি তাজুল ইসলাম, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি দিপংকর দে প্রমুখ।

সুনামগঞ্জমিরর/লিপসন/টিএম

শেয়ার করুন