Skip to content

দোয়ারাবাজার অনলাইন স্কুলের সেরা ৬ পারফরমার নির্বাচিত


সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে ঘরবন্দি কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পথ দেখাচ্ছে দোয়ারাবাজার অনলাইন স্কুল। এতে কিছুটা হলেও স্বস্তি পাচ্ছেন অভিভাবকরা। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের উদ্যোগে গত ১৬ আগস্ট থেকে এ কার্যক্রম চালু হয়েছে। প্রতিদিন দুপুর ২টা থেকে দুপুর ৩:৩০ মিনিট পর্যন্ত ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির ৩ টি করে ক্লাস নেওয়া হয়।

করোনার কারণে সরকার দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করায় শিক্ষার্থীরা ঘরবন্দি হয়ে পড়ে। এতে দেশের শিক্ষা কার্যক্রম মারাত্মকভাবে ব্যহত হয়। এ অবস্থায় সরকার বিটিভি, বিটিভি ওয়ার্ল্ড ও সংসদ টেলিভিশনে শিক্ষা কার্যক্রম চালু করে। এতে অনুপ্রাণিত হয়ে দোয়ারাবাজার উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের উদ্যোগে স্থানীয়ভাবে অনলাইন স্কুলের মাধ্যমে ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠদান কার্যক্রম শুরু হয়। পরে উপজেলার বিভিন্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বাছাই করা শিক্ষকদের তালিকা করে নিয়মিত পাঠদান কার্যক্রম চলে আসছে। ইতোমধ্যে এ কার্যক্রম উপজেলার সর্বত্র সাড়া ফেলেছে। তবে প্রযুক্তির সহজ মাধ্যম (অ্যান্ড্রয়েড ফোন ও ল্যাপটপ-কম্পিউটার) না থাকায় দরিদ্র পরিবারের শিক্ষার্থীদের এ কার্যক্রমে যুক্ত করা সম্ভব হচ্ছে না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক অভিভাবক বলেন, কার্যক্রমটি ভালো। তবে অর্থনৈতিক কারণে সব পরিবারের শিশুদের পক্ষে অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল, কম্পিউটার-ল্যাপটপ ব্যবহারের সুযোগ থাকে না। কিন্তু মোটামোটি সব পরিবারে টেলিভিশন থাকে। তাই এ কার্যক্রমটি যদি ডিশলাইনে চালানো যেত তা হলে প্রায় সব শিক্ষার্থী পাঠ গ্রহণের সুযোগ পেত।

এর পরিপেক্ষিতে দোয়ারাবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোনিয়া সুলতানা গত ২০ আগস্ট দোয়ারাবাজারে ক্যাবল অপারেটর দের সাথে মতবিনিময় করেন। মতবিনিময় সভায় ক্যাবল অপারেটরগণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার স্বার্থে বিনামূল্যে প্রতিদিন ডিশলাইনে দোয়ারাবাজার অনলাইন স্কুলের ক্লাস সমূহ প্রচারের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।

দোয়ারাবাজার অনলাইন স্কুলের কার্যক্রম একমাস অতিবাহিত করেছে। গত একমাসে উপজেলার বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষকবৃন্দ অনলাইনে ক্লাস নিয়েছেন। এদের মধ্যে অনেকেই ভালো পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন। তার মধ্যে  যথাযথ প্রক্রিয়ায় যাচাই বাছাই করে ৬ জন শিক্ষককে ‘সেরা অনলাইন পারফরমার’ হিসেবে নির্বাচিত করা হয়েছে। তারা অনেক দক্ষতার সাথে অনলাইনে ক্লাস নিয়েছেন।

সেরা অনলাইন পারফরর্মার হিসেবে নির্বাচিতরা হলেন-  সোনাপুর এসএইচডিপি মডেল হাই স্কুলের ইংরেজির সহকারী শিক্ষক এমদাদুল হক মিলন,  টেংরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বিজ্ঞানের সহকারী শিক্ষক মোঃ কামরুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন হেলাল খসরু হাইস্কুলের ইংরেজির সহকারী শিক্ষক মোঃ মছদ্দর আলী,  সমুজ আলী স্কুল এন্ড কলেজের
আইসিটির সহকারী শিক্ষক মোঃ সাইদুল ইসলাম জিলান, দোয়ারাবাজার সরকারি মডেল হাই স্কুলের আইসিটির সহকারী শিক্ষক গোলজার আহমেদ, এবং হাজী কনুমিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজির সহকারী শিক্ষক জুলফিকার আলম।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস থেকে জানা যায়, আগামী ২২ সেপ্টেম্বর দোয়ারাবাজার উপজেলা প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় উক্ত শিক্ষক বৃন্দকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হবে। প্রতিমাসে সেরা অনলাইন পারফরর্মার  নির্বাচিত করা হবে এবং সম্মাননা প্রদান অব্যাহত থাকবে।

আসাদুর রহমান ইজাজ
সুনামগঞ্জমিরর/এসএ

x