Skip to content

শিশু ধর্ষণের মিথ্যা মামলা: অভিযোগকারী বাবার ৫ বছরের দণ্ড

জয়পুরহাটে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে নিজের প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণের মিথ্যা মামলা করার দায়ে একজনকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।
সোমবার বিকালে জয়পুরহাটের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের বিচারক মো. রুস্তম আলী আদালতে এ রায় দেন বলে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (পিপি) নৃপেন্দ্রনাথ মন্ডল জানিয়েছেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত মোরশেদুল সরকার জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার ভূগোইল গ্রামের খয়রাত জামানের ছেলে।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণ থেকে জানা যায়, ২০১৯ সালের ৪ এপ্রিল মোরশেদুল বাদী হয়ে তার বাক-প্রতিবন্ধী মেয়ে শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে একই গ্রামের মকবুল হোসেনের ছেলের মেহেদী হাসানের (৩৪) বিরুদ্ধে কালাই থানায় মামলা করেন। এক মাস পর ৩১ মে পুলিশ আদালতে এ মামলার অভিযোগপত্রও দাখিল করে।

পিপি নৃপেন্দ্রনাথ মন্ডল জানান, আদালতে আইনজীবীদের পাল্টাপাল্টি যুক্তি-তর্ক এবং বাদী ও সাক্ষীদের জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে আসামি মেহেদীর সাথে বাদী মোরশেদুলের জমি সংক্রান্ত বিরোধের কথা বেরিয়ে আসে। মেহেদীকে ফাঁসাতেই এমন মিথ্যা মামলা করার কথাও ফাঁস হয়ে পড়ে।

ধর্ষণের এমন মিথ্যা মামলা করায় মোরশেদুলকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড এবং একই সাথে এ মামলা থেকে মেহেদী হাসানকে অব্যাহতির আদেশ দেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের বিচারক।

এ মামলায় আসামি পক্ষে হেনা কবীর এবং বাদী পক্ষে ফিরোজা চৌধুরী আইনজীবী হিসাবে রয়েছেন।

সুনামগঞ্জ মিরর/এও

x