Skip to content

কোনো আইনজীবী ধর্ষকদের পক্ষে দাঁড়াননি

মুরারিচাঁদ কলেজ (এমসি) ছাত্রাবাসে ধর্ষণ মামলার আসামিদের পক্ষে আদালতে কোনো আইনজীবী দাঁড়াননি। জঘন্য এই অপরাধের সঙ্গে সম্পৃক্তদের ঘৃণায় প্রত্যাখ্যান করেছেন সিলেটের আইনজীবীরা। আসামিদের স্বজনদের পক্ষ থেকে আইনজীবী নিযুক্তের সর্বোচ্চ চেষ্টা থাকলেও এতে সম্মত হননি সিলেটের কোনো আইনজীবী।

সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকালে মামলার প্রধান আসামি সাইফুর রহমান, আরেক আসামি অর্জুন লস্কর এবং দুপুরে রবিউল ইসলামকে সিলেট মহানগর হাকিম-২-এর আদালতে হাজির করা হয়। তবে তাদের পক্ষে শুনানিতে অংশ নেননি কোনো আইনজীবী।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষ তাদের বক্তব্য প্রদান করে এবং আসামিরা নিজেরাই আত্মপক্ষ সমর্থন করেন। তিন আসামিই আদালতে নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহপরান থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ইন্দ্রনীল ভট্টাচার্য আসামিদের ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদালত ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আইনজীবী দেবব্রত চৌধুরী লিটন বলেন, ‘এটি একটি জঘন্যতম অপরাধ, যা সমাজের মানুষকে নাড়া দিয়েছে এবং সমাজের মধ্যে প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। তাই ব্যক্তিগতভাবে নৈতিক অবস্থান থেকেই কোনো আইনজীবী আসামিপক্ষে দাঁড়াননি এবং তাদের জামিনের আবেদন কেউ করেননি।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ টি এম ফয়েজ বলেন, ‘আইনজীবীদের এ সিদ্ধান্ত ব্যক্তিগত। ঘৃণা প্রকাশের জন্যই স্বপ্রণোদিত হয়েই কোনো আইনজীবী আসামিপক্ষে মামলা পরিচালনা করতে যাননি।’

এখন পর্যন্ত সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতি আনুষ্ঠানিকভাবে এ সিদ্ধান্ত নেয়নি জানিয়ে এ টি এম ফয়েজ বলেন, ‘যেহেতু আইনি সুবিধা মানুষের সাংবিধানিক অধিকার, তাই আইনজীবী সমিতি আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো পক্ষে না থাকার সিদ্ধান্ত নিতে পারে না। সমিতি চাইলে কেবল বাদীপক্ষে থাকার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারে। সে ক্ষেত্রে পরোক্ষভাবে আসামিপক্ষে কোনো আইনজীবী থাকতে পারেন না। এ ক্ষেত্রে আসামিপক্ষ অন্য জেলার আইনজীবী আনতে পারে। তবে সেখানেও আইনজীবী সমিতির আনুষ্ঠানিক অনুমতির প্রয়োজন রয়েছে।

সুনামগঞ্জমিরর/এসএ

x