Skip to content

ধর্মপাশায় পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষে ওসিসহ আহত ২৫

ধর্মপাশা উপজেলায় পুলিশ ও আওয়ামী লীগের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ধর্মপাশা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ (ওসি) ২৫ জন আহত হয়েছেন।

বুধবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ অর্ধশতাধিক রাবার বুলেট ও তিন/চার রাউন্ড টিয়ার শেল ও নিক্ষেপ করেছে।

আহতরা হলেন- ধর্মপাশা থানার ওসি বায়েছ আলম, উপপরিদর্শক (এসআই) মকবুলসহ তিন পুলিশ সদস্য। তাদের ধর্মপাশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

অন্যান্য আহতদের মধ্যে যুবদল নেতা কানন মিয়া (৪৫), আবুল কাসেম (৩২), কাঞ্চন (৩৫), মিলন (৩৭), নাজমুল হুদা (২৫), কাসেম মিয়া (৩৪), কায়ছার (৩৭), হাবিব নূর (২৮), সাইদুল (৩৪), ছাত্রদল নেতা নূরুল আমিন (২৫) ও গিয়াসকে (২১) পার্শ্ববর্তী নেত্রকোনা জেলার মোহনগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। বাকিদের নাম জানা যায়নি।

এলাকাবাসী জানান, উপজেলা বিএনপি নেতা জুলফিকার আলী ভুট্টোর ওপর হামলা ও মামলা দায়েরের প্রতিবাদে বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলার দশদরি গ্রামের বাগান বাড়িতে এক প্রতিবাদ সমাবেশ করেন নেতাকর্মীরা।

সমাবেশ শেষে বিএনপি ও অংগসংগঠনের নেতাকর্মীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে শহরের জনতা উচ্চ বিদ্যালয়ের কাছে এলে পুলিশ তাতে বাধা দেয়। এতে নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়।

পরে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা এসে তাতে যোগ দেয়। এতে ওসি ও উপপরিদর্শক (এসআই) মকবুলসহ তিন পুলিশ সদস্য ও উভয়পক্ষের ২৫জন নেতাকর্মী আহত হন। এসময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাবার বুলেট ও টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে।

সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ হারুণ অর রশিদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

x