Skip to content

দিরাইয়ে শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

দিরাই উপজেলার সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা প্রণয় মালদারের বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলার সরমঙ্গল ইউনিয়নের নাচনী-২ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নীরেশ চন্দ্র রায় গত বুধবার দিরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে প্রণয় মালদারের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

নীরেশ চন্দ্র রায় বলেন, গত ১৩ জানুয়ারি আমি দুপুরে বিদ্যালয়ের কাজে সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়ে যাই। এ সময় তিনি ধূমপান করছিলেন। আমি স্যারকে ধূমপান না করতে অনুরোধ করলে তিনি ক্ষিপ্ত হন। স্যার স্থানীয় লোক হওয়ায় আমি কিছুই বলিনি। এ সময় তাঁর সামনে বসা ছিলেন অন্য আরেক সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা তাপস রায়, মাতারগাঁও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তপন কুমার মজুমদার ও হাতিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গীতেশ চন্দ্র দাস।

নীরেশ চন্দ্র রায় আরও জানান, ঐ কর্মকর্তা প্রশিক্ষণ বাবত ২২৫ টাকার সরকারি বরাদ্দের স্থলে তাদেরকে ১৮০ টাকা করে দিয়ে আসছেন। এব্যাপারে বিভিন্ন সভায় অভিযোগ করেও সুফল মেলেনি। বিভিন্ন অজুহাতে শিক্ষিকাদের সাথে সময় কাটানোরও অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

এসব ব্যাপারে প্রনয় মালদার বললেন, আমি ধুমপায়ী নই, কিছুদিন আগে নাচনী প্রথমিক বিদ্যালয় পরির্দশনে গেলে, স্থানীয় লোকেরা নীরেশ বাবুর সামনে তাঁর বিরুদ্ধে, নিয়মিত স্কুলে না আসা, আসলেও তড়িগড়ি করে চলে যাওয়ার অভিযোগ করেন। এবার সমাপণী পরীক্ষায় এ বিদ্যালয়ের রেজাল্ট ১০০% থেকে ৫০% নেমে এসেছে। নিজেকে বাঁচাতে হয়তো তিনি (নীরেশ) আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন।

শিক্ষক নীরেশ চন্দ্র রায় বুধবার ২২ জানুয়ারি শিক্ষা কর্মকর্তা প্রণয়ের বিরুদ্ধে, সিগারেট পানসহ বিভিন্ন অনিয়মের লিখিত অভিযোগ করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলতাফ হোসেন অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি আমি দেখব।

x