Skip to content

মানুষের কল্যাণের সুযোগ পুরোটাই কাজে লাগাতে চাই : পীর মিসবাহ এমপি

সুনামগঞ্জ-৪ (সদর-বিশ্বম্ভরপুর) আসনের নতুন সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ বলেছেন, জনপ্রতিনিধি হিসেবে মানুষের কল্যাণে যে সুযোগ রয়েছে তা সম্পূর্ণটাই কাজে লাগাতে চাই। এ জন্য কলম সৈনিক ভাইদের সহযোগিতা প্রয়োজন।

রোববার রাত পৌনে ৮টায় সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে তাকে দেওয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথি ও প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের সহসভাপতি ও সাপ্তাহিক সুনামকণ্ঠের সম্পাদক বিজন সেন রায়ের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পীর মিসবাহ বলেন, সাংবাদিকরা সংবাদপত্রে সুনামগঞ্জের সমস্যা ও সম্ভাবনা তোলে ধরে সুনামগঞ্জের উন্নয়ন কাজে সহযোগিতা করার আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, মানুষের কল্যাণে আমার কণ্ঠ সব সময় সোচ্চার থাকবে। আমি গণমানুষের পক্ষে থাকতে চাই। আমি মানুষের জন্য কাজ করতে চাই। আমাকে সহযোগিতা করুন।

এসময় পীর মিসবাহ বলেন, সাংবাদিকরা জাতীর দর্পণ তাই সুনামগঞ্জে কর্মরত সকল গণমাধ্যমের প্রতিনিধিরা দলমত নির্বিশেষে সুনামগঞ্জের উন্নয়নের জন্য আমাকে সহযোগিতা করুন।

পীর মিসবাহ সুনামগঞ্জের রাজনীতিতে সাবেক মন্ত্রী মরহুম ইকবাল হোসেন চৌধুরী ও তাঁর স্ত্রী মরহুমা মমতাজ ইকবালের রাজনৈতিক সততার ভূমিকা তুলে ধরে বলেন, এই সুনামগঞ্জে আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব দিয়েছেন মরহুম ওবায়দুর রেজা চৌধুরী, মরহুম আব্দুজ জহুর, মরহুম হোসেন বখতের মতো মুুক্তিযুদ্ধের বীর সংগঠকরা। আমি গরীবের নেতা আলফাত মোক্তারের ভাষাণপানি আন্দোলনের কর্মী ছিলাম। আমি কমরেড বরুণ রায়ে ত্যাগে রাজনীতিকে কাছে থেকে দেখেছি। ইকবাল হোসেন চৌধুরী ও শহরের আলোকিত নেতা অকাল প্রয়াত মমিনুল মউজদীনের দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও মাদকবিরোধী আন্দোলনের সামনের কাতারের কর্মী ছিলাম। পীর মিসবাহ আরো বলেন, সেইসব বরেণ্য রাজনৈতিক নেতাদের ঐতিহ্যের উত্তরাধিকারীত্ব নিয়েই তাদের ধুলোমাখা পথে হাটবো।

সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সংবর্ধানা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ শেরগুল আহমদ, বাংলাদেশ টেলিভিশনের জেলা সংবাদ প্রতিনিধি আইনুল ইসলাম বাবলু, মানবজমিন প্রতিনিধি রওনক আহমদ।

সাংবাদিক আল-হেলালের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন, প্রেসক্লাবে অর্থসম্পাদক মাহবুবুর রহমান পীর, সহসম্পাদক সেলিম আহমদ, সাংবাদিক শাহাবুদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।

x