ভালোবাসার রং

ভালোবাসা। এই শব্দটি কত কবির কলমে ফুটে ওঠেছে মূর্ত হয়ে। ‘ভালোবাসা’ আবার অনেকের জীবনে অধরাই থেকে গেছে অচিন পাখি হয়ে।

যার জীবনে ভালোবাসা নিয়ে এসেছে সফল পরিণতি, তার কাছে ভালোবাসা বসন্তের কোনো ফুল বাগানের মতই রঙিন। আবার কারো কারো জীবনে ভালোবাসা বিবর্ণ, ধূসর, শুধুই দুঃখের স্মৃতি। আসলে ভালোবাসার রং কী?

এ বিষয়ে পাওয়া যায় ভিন্ন ভিন্ন উত্তর।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকল্যাণ বিভাগের শিক্ষার্থী প্রিয়াংকার কাছে ভালোবাসা রং লাল। তার মতে, লাল আনন্দের রং। আর ভালোবাসা তো আনন্দেরই বিষয়, সোজাসাপ্টা উত্তর প্রিয়াংকার।

আবার স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ফারজানার কাছে ভালোবাসার রং নীল। তার কাছে নীল রং প্রতিনিধিত্ব করে বিশাল আকাশের।

তবে চিকিৎসক নিলয়ের কাছে ভালোবাসার রং সাদা। তিনি জানান, সাদার শুভ্রতাই ভালোবাসার প্রতিচ্ছবি।

এদিকে প্রকৌশলী তৃণার কাছে ভালোবাসার রং গোলাপি। তৃণা বলেন, ‘আমার কাছে গোলাপি খুবই মিষ্টি রং। ভালোবাসাও গোলাপির মতই মিষ্টি।’

তবে ভালোবাসাকে রংধনুর সাত রঙের সঙ্গে তুলনা করলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক জিনিয়া। তার কাছে ভালোবাসা রংধনুর মতই বর্ণিল।

জিনিয়ার ভাষায়, ভালোবাসার রক্তক্ষরণে জীবন হয়ে ওঠতে পারে রক্তিম। ভালোবাসা জীবনকে যখন আরও রঙিন করে তোলে তখন জীবনের রং হয়ে ওঠে কমলা। কোনো কারণ ছাড়াই ভালোবাসা যখন মানুষকে হাসাতে পারে তখন জীবনের রং হয়ে ওঠে হলুদ। ভালোবাসা যখন অমর, তখন এর রং সবুজ। ভালোবাসা যখন আকাশের মত বিশালতার অনুভূতি দেয় তখন এর রং নীল। ভালোবাসা যখন বসন্তের মত সজীবতা আনে জীবনে, তখন এর রং আসমানী। আর ভালোবাসা যখন ফুলের মত সৌন্দর্য আনে জীবনে তখন এর রং বেগুনি। সব মিলিয়ে ভালোবাসা হল- রংধনুর সাত রঙের সমষ্টি।

তবে ভালোবাসার রং যাই হোক, জীবনকে রঙিন করে তুলতে ভালোবাসা অতুলনীয়।

x