Skip to content

ফাল্গুনের শুরুতে সুনামগঞ্জে বৃষ্টি, উল্লাসিত কৃষক

ফাল্গুনের শুরুতে বৃষ্টিপাতের কারণে সুনামগঞ্জের কৃষকরা উল্লাসিত হয়েছেন।

শনিবার ভোররাত থেকে সুনামগঞ্জে হাল্কা বৃষ্টিপাতকে বোরো চাষাবাদে কৃষকদের স্বপ্ন বাস্তবায়িত হবে বলে তারা আনন্দে উল্লাসিত হচ্ছেন।

সুনামগঞ্জ জেলা কৃষি অধিদপ্তর জানায় শনিবার পর্যন্ত জেলার ৯৫ ভাগ বোরো রোপন করা হয়েছে।

দিরাই উপজেলার জগদল ইউনিয়নের কলিয়ার কাপন গ্রমের কৃষক গোলাম কিবিয়া চৌধুরী জানান, তিনি গ্রামের পার্শ্ববর্তী চাপতির হওরে প্রায় একর বোরো জমি রোপন করছেন। ফাল্গুনের শুরুতে হাল্কা বৃষ্টি হওয়ায় রোবো ফসল ফলনে অত্যন্ত সহায়ক হবে।

একই বক্তব্য ওই উপজেলার রফিনগর ইউনিয়নের খাগাউড়া গ্রামের কৃষক হেমেন্দ্র জানান, তিনি ১৮ একর জমি চাষাবাদ করেছেন। এ মুহূর্তে বৃষ্টি হওয়ায় বোরো ফসলে ভাল ফলন হবে এমন আশায় তারা উল্লাসিত।

জামালগঞ্জ উপজেলার শাহপুর গ্রামের কৃষক মাহমদ আলী জানান, তিনি ২ একর বোরো জমি চাষাবাদ করেছেন। বৃষ্টি হওয়ায় ভাল ফসল হবে এমন আশায় স্বপ্ন বুনছেন। একই বক্তব্য উপজেলা তেলিয়া গ্রামের কৃষক আব্দুল আহামেদর।

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার খরচার হওর পরের কৃষ্ণনগর গ্রামের কৃষক স্বপন কুমার বর্মণ জানান, এবার তিনি ৪ একর বোরো জমি চাষাবাদ করেছেন। বৃষ্টি হওয়ায় জমিতে সেচ দিতে হচ্ছে না। এতে শুধু ডিজেল খরচই কমবে না ভাল ফসলও হবে। একই বক্তব্য জগন্নাথপুর উপজেলার নলোয়ার হাওর পড়েরর কৃষক সিদ্দিক আলী, ছাতক উপজেলার মিয়া তৈল গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য কৃষক সিরাজুল ইসলাম, ধর্মপাশা উপজেলার জয়শ্রী ইউনিয়নের সোনামড়ল হাওর পারের রাজেন্দ্র নগর গ্রামের কৃষক আব্দুল মালেকের।

কৃষি অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, জেলার ১১টি উপজেলায় ২ লাখ ৩ হাজার হেক্টর বোরা আবাদের লক্ষমাত্র নির্ধারণ করা হয়েছে। শনিবার পর্যন্ত চাষাবাদ হয়েছে ২ লাখ ১১ হাজার ৬৬৬ হেক্টার বোরো জমি।

জেলায় বোরো উৎপাদনের লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১১ লাখ ২৫ হাজার মেট্রিক টন ধান। যার চাল হবে সাড়ে ৭ লাখ মেট্রিক টন।

জেলার সুনামগঞ্জে সদর উপজেলায় ১৪ হাজার নয়শ ৫০ হেক্টর বোরো জমি চাষাবাদ করা হয়েছে, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজলায় ২২ হাজার ৭৪ হেক্টর, দোয়ারা বাজার উপজেলায় ১১ হাজার সাতশ ৮০ হেক্টর, বিশ্বম্ভরপুরে ১০ হাজার ছয়শ ৪০ হেক্টর, জগন্নাথপুর উপজেলায় ২০ হাজার দুইশ হেক্টর, জামালগঞ্জ উপজেলায় ২৪ হাজার নয়শ ২০ হেক্টর, তাহিরপুর উপজেলায় ১৭ হাজার হেক্টর, ধর্মপাশায় ৩০ হাজার পাঁচশ ৬০ হেক্টর, দিরাই উপজেলায় ২৭ হাজার পাঁচশ ৫০ হেক্টর এবং শাল্লা উপজেলায় ২২ হাজার হেক্টর, ছাতক উপজেলায় ৯ হজার নয়শ ৯২ বোরো জমিতে চাষাবাদ করা হয়েছে।

সুনামগঞ্জ কৃষি অধিদপ্তরের উপ পরিচালক ড. আফসারুজ্মান শনিবার সকাল ৬টায় সুনামগঞ্জে ২৪ ঘণ্টার গড় বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ২ দশমিক ০১ মিলি মিটার। এ হাল্কা বৃষ্টিপাতের কারণে বোরো ফসলনে অত্যন্ত সহায়ক হয়েছে।

তিনি আরো জানান, শনিবার পর্যন্ত ২ লাখ ১১ হাজার ছয়শ ৬৬ হেক্টার বোরো জমি। তবে এবছর বোরো রোপন হবে ১০৫ ভাগ।

x