Skip to content

জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করেছে হাইকোর্ট

মনোনয়নপত্র দাখিলের পূর্বেই সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন স্থগিত করেছে হাইকোর্ট। সোমবার হাইকোর্টের বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও মো ঃ হাবিবুল গনির আদালত তিন মাসের জন্য নির্বাচনী কার্যক্রম ঘোষণার পাশাপাশি কারণ দর্শাতে নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দিয়েছেন। রোববার জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা আকমল হোসেন স্থগিতাদেশ চেয়ে হাইকোর্টে ১৬০০/২০১৪ নং রিট পিটিশনটি দায়ের করেন।

জানা যায়, ৪র্থ দফায় ৯২ টি উপজেলার সাথে সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের নির্র্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য ২৩ ফেব্র“য়ারী মনোনয়নপত্র দাখিলের দিন ধার্য্য করে তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। ঘোষিত তফসিলে ২৩ মার্চ নির্বাচনের দিন ধার্য্য করা হয়।

মামলার বাদী বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আকমল হোসেন দাবী করেন, ২০০৯ সালের ২২ জানুয়ারী জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের নির্বাচন সম্পন্ন হলেও একটি কেন্দ্রের গোলযোগের জন্য ভোট গ্রহণ স্থগিত থাকে। পরবর্তীতে ২০১১ সালের ৫ ডিসেম্বর স্থগিত সাহারপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে পূণঃ নির্বাচনের মাধ্যমে তিনি নির্বাচিত হন। ১৫ ডিসেম্বর গেজেট প্রকাশিত হওয়ার পর ২৭ ডিসেম্বর তিনি চেয়ারম্যান হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন।

দুই বছর একমাস দায়িত্ব্ পালন করার পর নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিলে তার উপজেলাকে অন্তর্ভূক্ত করায় তিনি সাংবিধানিকভাবে পূর্ণাঙ্গ মেয়াদে দায়িত্ব পালন এর সুযোগ থেকে বঞ্চিত হবেন। এই আশঙ্কায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার, নির্বাচন কমিশন সচিব, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় সচিব, জেলা রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে বিবাদী করে তিনি রিট পিটিশনটি দায়ের করেন। জেলা রিটানিং অফিসার দেবজিৎ সিংহ ও জেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ আমিনুল ইসলাম মঙ্গলবার স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, আমরা হাইকোর্টের আদেশের একটি কপি পেয়েছি।

x