Skip to content

দু’টি উপজেলায় সকাল ৮টা থেকে ভোট গ্রহন চলছে

চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে সুনামগঞ্জের দু’টি উপজেলায় বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে।

উপজেলা গুলো হচ্ছে, সুনামগঞ্জ সদর ও দিরাই উপজেলা।

দু’টি উপজেলার ১৪১ টি কেন্দ্রে সকাল ৮টা থেকে একটানা বিকাল ৪টা ভোট গ্রহন পর্যন্ত চলবে।

এ দু’টি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৭ জন, ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ)পদে ১২ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ০৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

সুনামগঞ্জ সদর উপজেলায় চেয়ামন্যান পদে ০৫ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ০৯ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ০৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বান্দতা করছেন।
এ উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৬২ হাজার ৪ শ ৭৮ জন।

এর মধ্যে পুরুষ ভোটর হচ্ছেন ৮১ হাজার ১ শ ৭৭ জন এবং নারী ভোটার হচ্ছেন ৮১ হাজার ৩ শ ০১ জন।

এদিকে দিরাই উপজেলায় চেয়রম্যান পদে ০২ জন, ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ)পদে ০৩ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ০৩ জন।

এ উপজেলায় মোট ভোটার হচ্ছেন ১ লাখ ৫১ হাজার ৫ শ ৭১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার হচ্ছেন ৭৬ হাজার ৫২ জন এবং নারী ভোটার হচ্ছেন ৭৫ হাজার ৫ শ ১৯ জন।

দু’টি উপজেলায় মোট ভোটার হচ্ছেন ৩ লাখ ১৪ হাজার ৪৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার হচ্ছেন ১ লাখ ৫৭ হাজার ২ শ ২৯ জন এবং নারী ভোটার হচ্ছেন ১ লাখ ৫৬ হাজার ৮ শ ২০ জন।

সুনামগঞ্জ সদর ও দিরাই উপজেলায় ১৪১ টি ভোট কেন্দ্রর মধ্যে ৭৫ টি কেন্দ্রই গুরুত্বপূর্ণ ও ঝুঁকিপূর্ণ।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জানে আলম খান ও দিরাই থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এনামুল হক। তারা জানান, এসব কেন্দ্রে রয়েছে কড়া নজরদারি।

সকালে সরজমিনে ভোট কেন্দ্র পরিদর্শনে বের হয় সুনামগঞ্জ মিরর টিম। সুনামগঞ্জ শহরের কোন কেন্দ্রেই ভোটারদের লম্বা সারি চোখে পড়েনি।

ষোলঘর দ্বীনি সিনিয়র মাদ্রাসা কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা প্রিজাইডিং অফিসার মোঃ হারুনুর রশীদ জানান, এ কেন্দ্রে মোট ভোটার ৪১২৮ জন। দুপুর ১টা পর্যন্ত অর্ধেকেরও কম ভোট পড়েছে। ষোলঘর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র, হাসনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ অন্যান্য কেন্দ্রে ঘুরেও প্রায় একই অবস্থা দেখা যায়।

জেলা নির্বাচন অফিস জানায়, নির্বাচনে সুষ্ঠু ও শান্তির্পূণ পরিবেশ বজায় রাখতে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলোতে পুলিশ ও র‌্যাবের পাশাপাশি বিজিবি ও সেনা সদস্যরা টহল দিচ্ছে।

দু’টি উপজেলায় ৮ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিবাচর্নী দায়িত্ব পালন করছে এবং ২ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ২ টি ভ্রাম্যমান অদালত সক্রিয় রয়েছে।

x