ছাতকে প্রেমিক যুগলের আত্মহত্যা

দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক সফল না হওয়ায় ছাতক উপজেলার নোয়ারাই ইউনিয়নের কুরিয়া গ্রামে রোববার প্রেমিক যুগল আত্মহত্যা করেছে।

এরা হলেন, চম্পা রানী বিশ্বাস (১৮) ইউনিয়নের কুরিয়া গ্রামের মৃত দ্বিগেন্দ্র বিশ্বাসের মেয়ে এবং দিলীপ বিশ্বাস (২৩)সিলেটের বালাগঞ্জ উপজেলার কুবেরাই গ্রামের করুণা বিশ্বসের ছেলে।

চম্পা দিলীপের ফুফাতো বোন।

পুলিশ জানায়, দীর্ঘ দু’বছর ধরে দিলীপ ছাতকের লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট ফ্যাক্টরীর অস্থায়ী শ্রমিক হিসেবে কাজ করে আসছে দিলীপ। এর পর থেকে ফুফাতো বোন চম্পাদের বাড়িতে দিলীপের অবাধ যাতায়াতের সুবাধে চম্পার সঙ্গে দিলীপের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

রোববার বিকেল ৪টায় স্থানীয় ব্র্যাক স্কুলের একটি কক্ষের তীরের সাথে গলায় ওড়না পেছিয়ে প্রেমিক যুগল আত্মহত্যা করে। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, গত বৃহস্পতিবার চম্পাদের বাড়ি বেড়াতে যায়। এরপর শনিবার রাত থেকে প্রেমিক যুগল নিখোঁজ হয়। অনেক খোজাখোজির পর বিকেলে এক পর্যায়ে স্থানীয় ব্র্যাক স্কুলের একটি কক্ষের জানালার ফাঁক দিয়ে চম্পার স্বজনরা গলায় ওড়না পেচানো ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে ছাতক থানা পুলিশকে খবর দেন। খবর পেয়ে পুলিশ সন্ধ্যা ৭ টায় প্রেমিক যুগলের লাশ উদ্ধার করে ।

ছাতক থান ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহজালাল মুন্সি বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, লাশ থানায় রাখা হয়েছে। সোমবার ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে।

x