Skip to content

দুঃখজনক হারেও সুপার টেনে বাংলাদেশ

হংকং আসরের দুর্বল দল, যেন এ কথা মাথায় রেখেই মাঠে নেমেছিলো স্বাগতিক বাংলাদেশ। কিন্তু সেই দুর্বল দলের কাছেই আরো বড় দুর্বলতার পরিচয় দিলো মুশফিক বাহিনী।

প্রতিপক্ষ বোলারদের তোয়াক্কা না করায় ব্যাটিংয়ের মাশুল গুনলো টাইগাররা।

বৃহস্পতিবার স্বাগতিকদের ব্যাটিং লাইনআপ দুমড়ে মুচড়ে দিলেন হংকংয়ের বোলার নাদিম আহমেদ ও নিজাকাত খান।

আইসিসির সহযোগী দেশ হিসেবে প্রথম বারের মতো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে এসেছে হংকং। আসরের তৃতীয় ম্যাচেই বাংলাদেশকে দুই উইকেটে হারিয়ে বাজিমাৎ করলো তারা।

বাংলাদেশ: ১০৮/১০ (১৬.৩ ওভার)
হংকং: ১১৪/৮ (১৯.৪ ওভার)
ফল: হংকং দুই উইকেটে জয়ী

টস জিতে প্রথমে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান হংকং অধিনায়ক। গ্রুপ পর্বের প্রথম দুই ম্যাচে বাংলাদেশ টস জিতে প্রথম ফিল্ডিং করেছিলো। কিন্তু এবার ঘটে ব্যতিক্রম। প্রথমে ব্যাটিংয়ে নামে লাল-সবুজরা। স্কোর বোর্ডে রানের খাতা না খুলতেই বোল্ড হন তামিম ইকবাল। তানভীর আফজালের দ্বিতীয় বলে জন্মদিনটা শূন্য রইলো তামিমের।

প্রথম ওভারের শেষ বলে আফজালের বলে এলবিডব্লিউর শিকার হন সাব্বির রহমান। তিন রানে দুই উইকেট হারিয়ে যখন ধুঁকছে বাংলাদেশ তখন হাল ধরেন সাকিব ও এনামুল। তাদের জুটিতে ৪৮ রান আসে। দলীয় ৫১ রানে সপ্তম ওভারে নাদিম আহমেদের বলে বোল্ড হন এনামুল হক (২৬)।

সাকিবের সঙ্গে জুটি গড়েন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। ব্যক্তিগত ৩৪ রানে আউট হন দেশ সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ৮৫ রানে সাকিবের আউটের পর আসা যাওয়ার মধ্যে ব্যাটসম্যানরা। ফরহাদ রেজা, আব্দুর রাজ্জাক ও রুবেল হোসেন শূন্য (০) রানে বিদায় নেন।

মুশফিকুর রহিম ২৩ রানে সাজঘরে ফেরার পর ১৭ বলে ১৪ রান নিয়ে উইকেটে ছিলেন নাসির হোসেন। কিন্তু নির্ধারিত ওভারের আগে সবকটি উইকেট হারায় টাইগাররা। মাত্র ১৬.৩ ওভারে ১০৮ রান গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ।

টি-টোয়েন্টির মতো ম্যাচ মাত্র ১০৯ রানের লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামে হংকং। প্রথম ওভারের দুই বলে দুইটি ওয়াইড দেন আল আমিন। দ্বিতীয় বলে ইফরান আহমেদ আল আমিনের মাথার উপর বল দিলে ধরতে ব্যর্থ হন তিনি। দ্বিতীয় ওভারে সাকিব আল হাসানের বলে ওয়াকাস বারকাতকে স্ট্যাম্পিং করেন মুশফিক। পর পর তিনটি উইকেট আসে সাকিবের ওভার থেকে।

তৃতীয় ওভারের শেষ বলে আব্দুর রাজ্জাকের বলে রুবেল ক্যাচ ধরতে ব্যর্থ হন। সপ্তম ওভারের প্রথম বলে সাকিব ফেরান ইফরান আহমেদকে (৩৪)। ওই ওভারের শেষ বলে অ্যাটকিসনকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন সাকিব।

নবম ওভারের শেষ বলে বাবার হায়াতকে ফেরান আল আমিন। মাহমুদউল্লাহ প্রথম ওভারে চ্যাম্পেনকে সাজঘরে ফেরান। বাংলাদেশকে চাপে ফেলে দেন ফরহাদ রেজা দ্বিতীয় ওভারটি। ১৭ তম ওভারে তিনি ১৫ রান দেন। ১৮ তম ওভারের শেষ বলে রাজ্জাক মুনির দারকে (৩৬) ফেরান। ততক্ষণে অবশ্য মুনির দার হংকংয়ের জয়ের ধারা উন্মোচন করেন।

সাব্বিরের ব্রেক থ্রোতে তানভীর আফজাল আউট হলেও ততক্ষণে খেলা হেলে পড়েছে হংকংয়ের দিকে। এক পর্যায়ে ছয় বলে ছয় রানের প্রয়োজন ছিলো হংকংয়ের। ২০ তম ওভারে চতুর্থ বলে ছক্কা হাঁকিয়ে জয় তুলে নেয় হংকং।

ম্যাচ সেরা হন চার উইকেট পাওয়া নাদিম আহমেদ।

x