Skip to content

তাপপ্রবাহ আরো ক’দিন, সতর্কতার পরামর্শ

চৈত্রের খরতাপে পুড়ছে দেশ। রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রচণ্ড গরম আবহাওয়ায় বাড়ছে মানুষের রোগবালাই। পশুপাখিরাও রয়েছে অস্বস্তিতে।

আবহাওয়া অফিস বলছে, মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের যে তাপপ্রবাহ বইবে, তা আরো কয়েকদিন থাকবে। এপ্রিল-মে মাসে আসবে তীব্র তাপপ্রবাহ।

আর চিকিৎসকরা এ প্রতিকূল আবহাওয়ায় সতর্কতার সঙ্গে খাবার গ্রহণসহ কিছু নিয়ম মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন।

গত ক’দিন ধরে চলা তীব্র গরমে অসুস্থ হয়ে পড়ছে মানুষ। বিভিন্ন হাসপাতালে ডায়রিয়াসহ পানিবাহিত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে।

রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) সিনিয়র সায়েন্টিফিক অফিসার ড. মুনির চৌধুরী বলেন, গরমে নানা রকম রোগবালাই হয়ে থাকে। রোগবালাই থেকে বাঁচতে রাস্তার পাশের খোলা খাবার না খাওয়ার, তীব্র ঠাণ্ডা পানীয় গ্রহণ না করার পরামর্শ দেন ড. মুনির।

তিনি বলেন, যথাসম্ভব সূর্যের আলো এড়িয়ে চলতে হবে। এজন্য সানগ্লাস, ক্যাপ এবং ছাতা ব্যবহার করা যেতে পারে।

এছাড়া প্রচুর পানি ও লেবুর শরবত পান করারও পরামর্শ দেন এই গবেষক।

আবাহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ রাশেদুজ্জামান রোববার বলেন, গত ২৬ মার্চ থেকে শুরু হওয়া তাপপ্রবাহ আরো বাড়তে পারে এবং তা ৩-৪ দিন থাকবে। ৩ এপ্রিল বৃষ্টির পর তাপপ্রবাহ কমে যাবে।

তিনি জানান, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, ঢাকা, রাঙ্গামাটি, শ্রীমঙ্গল এবং দিনাজপুরের ওপর দিয়ে তাপপ্রবাহ চলছে।

রোববার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রাঙ্গামটি, চাঁদপুর, মাঈজদীকোর্ট, শ্রীমঙ্গল ও দিনাজপুর অঞ্চলসহ রাজশাহী, খুলনা, ঢাকা ও বরিশাল বিভাগের উপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকবে।

সারাদেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে।

রোববার দুপুরে ঢাকায় সর্বোচ্চ ৩৬ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। এই তাপমাত্রা আরো বাড়তে পারে। শনিবার ঢাকায় যা ছিল ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

শনিবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রাজশাহীতে ছিল ৩৯ দশমিক ৬ ডিগ্রি, যা এ মৌসুমের সর্বোচ্চ বলছে আবহাওয়া অফিস।

রোববার সকাল ছয়টা পর্যন্ত ফরিদপুরে সর্বোচ্চ ৩৮ দশমিক ৫, রাঙ্গামাটিতে ৩৭, সিলেটে ৩৫, শ্রীমঙ্গলে ৩৬ দশমিক ৬, ঈশ্বরদীতে ৩৮ দশমিক ৪, বগুড়ায় ৩৭, রংপুরে ৩৪ দশমিক ৭, দিনাজপুরে ৩৬, খুলনায় ৩৮ দশমিক ৫, মংলায় ৩৯.৪, যশোরে ৩৯ দশমিক ৪, বরিশালে ৩৭ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়।

আবহাওয়া অফিসের তিন মাসের পূর্বাভাসে বলা হয়, এপ্রিল ও মে মাসে দেশের উত্তর ও উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে একটি তীব্র তাপপ্রবাহ (>৪০ সে.) এবং অন্যত্র ২-৩টি মৃদু (৩৬-৩৮ সে.) থেকে মাঝারি (৩৮-৪০ সে.) তাপপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

এ দুই মাসে দেশের উত্তর, উত্তরপূর্বাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে ২-৩ দিন বজ্রসহ মাঝারি/ তীব্র কালবৈশাখী/বজ্র-ঝড় ও দেশের অন্যত্র ৩-৪ দিন হালকা/মাঝারি কালবৈশাখী /বজ্রঝড় হতে পারে।

x