Skip to content

আইন মন্ত্রণালয় অমনোযোগী

প্রতারণামূলক ও জাতীয় মামলাগুলোর নিষ্পত্তির দায়িত্ব দুদক এবং থানা উভয়কে দেওয়ায় বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও বর্তমান সংসদ সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত।

আইন মন্ত্রণালয়ের এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে চিন্তা করা উচিৎ ছিল। অমনোযোগী হয়েই আইন মন্ত্রণালয় এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

শুক্রবার রাজধানীর ইন্সটিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ কনফারেন্স হলে বঙ্গবন্ধু একাডেমি আয়োজিত ‘চলমান রাজনীতি’ বিষয়ে এক আলোচনা সভায় তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, দুদক আইনে সংশোধন করে অপরাধের ৪২০, ৪৬৬, ৪৬৭, ৪৬৮, ৪৬৯ এবং ৪৭৯ ধারাগুলো নিয়ে জনগণের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করেছে। এই ধরনের প্রতারণা ও জালিয়াতিমূলক মামলাগুলো থানাতেই নিষ্পত্তি সম্ভব। তবে আইন মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের কারণে এখন থানা পুলিশ আর মামলা নিতে চায় না।

আগামী ১০ তারিখে সংসদ শেষ হয়ে যাবে। এর আগেই এ বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য আইনমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি।

আলোচনা সভায় বঙ্গবন্ধু একাডেমির উপদেষ্টা ইশতিয়াক হোসেন দিদার, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ফয়েজ উদ্দিন মিয়া, বঙ্গজননী পত্রিকার সম্পাদক কামরুজ্জামান জিয়া ছাড়াও সংগঠনের তৃণমূলের সদস্যরা অংশগ্রহণ করেন।

x