Skip to content

বিএনপি দেশের দিকে তাকায় না– প্রধানমন্ত্রী

“বিএনপি দেশের দিকে তাকায় না। তারা সব সময় নিজেদের আখের গোছাতে ব্যস্ত থাকে,” এ কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতি কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যরা সাক্ষাত্ করতে গেলে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
এসময় বিএনপির বিভিন্ন কাজের কঠোর সমালোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী।

বিএনপি সরকার মাত্র এক টাকা মূল্যে সিএসডি গুদামের জায়গা একটি বেসরকারি কোম্পানিকে লিজ দিয়েছিল এমন তথ্য তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “৪০টি গুদাম ভেঙে এ জমি লিজ দিয়ে আত্মঘাতী কাজ করেছিল বিএনপি সরকার।”

আইনজীবীদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সরকার বাংলাদেশকে একটি সম্ভাবনাময় দেশ ও উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে। আর এটি সম্ভব হয়েছে ব্যাপক উন্নয়ন এবং সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ কঠোর হস্তে দমনের মাধ্যমে।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিল সর্বিক উন্নয়নের মাধ্যমে দেশের সাধারণ মানুষের মুখে হাসি ফোটানো আর বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নই বর্তমান সরকারের লক্ষ্য। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তার সরকারের লক্ষ্য হচ্ছে জনগণের ভাগ্য পরিবর্তন এবং স্বাধীনতার চেতনা বাস্তবায়ন করা।

দারিদ্র্য দূরীকরণ এবং দুস্থ মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য আমাদের সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে, বলেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, গত পাঁচ বছরে আর্থ-সামাজিক ক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। বিদ্যুৎ এবং গ্যাস খাতের পাশাপাশি তাঁর সরকার মাথাপিছু আয় ও বৈদেশিক রিজার্ভ বাড়িয়েছে।

চট্টগ্রামের বিভিন্ন উন্নয়নকাজের কথাও এসময় উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

চট্টগ্রাম বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করা, একটি আন্তর্জাতিক মানের স্টেডিয়াম নির্মাণ, ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম পর্যন্ত ডাবল রেল লাইন এবং ঢাকা-চট্টগ্রাম হাইওয়েতে চার লেনের কাজের অগ্রগতির কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ছয় লেনের সুবিধা রেখে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে চার লেনের কাজ চলছে, যাতে করে ভবিষ্যতে এ মহাসড়কে এক্সপ্রেসওয়ের রুট তৈরি করা সম্ভব হয়।
এছাড়াও কর্ণফুলী নদীর নিচ দিয়ে একটি টানেল নির্মাণ এবং চট্টগ্রাম শহরে একটি রিংরোড তৈরির পরিকল্পনা হাতে নেওয়ার কথাও উল্লেখ করেন শেখ হাসিনা। টানেল নির্মাণের জন্য সমীক্ষার কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে বলেও জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকারের ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ডের ফলে চট্টগ্রাম নগরী সত্যিকারের বাণিজ্যিক রাজধানীতে পরিণত হয়েছে। ‘চট্টগ্রামে একসময়ে বাণিজ্যিক রাজধানী নামেই ছিল। দীর্ঘদিন ধরে এই নগরী অবহেলিত ছিল। কিন্তু আমরা বন্দরনগরীকে সত্যিকারের বাণিজ্যিক রাজধানীতে পরিণত করেছি।’

চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক আবদুর রশিদের নেতৃত্বে ৫৩ সদস্যের প্রতিনিধিদল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে। প্রধানমন্ত্রী সমিতির নবনির্বাচিত কর্মকর্তাদের অভিনন্দন জানান এবং তাঁদের এ বিজয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে ঐক্যবদ্ধ থাকার নির্দেশ দেন।

x