Skip to content

দরিদ্র জনগোষ্ঠরি উন্নয়ন হলে দেশের উন্নয়ন হবে– দিরাই ইউএনও

সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলা নির্বার্হী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ আলতাফ হোসেন বলেছেন, দরিদ্র জনগোষ্ঠীর উন্নয়ন হলে একটি দেশের উন্নয়ন হবেই হবে।

বুধবার বিকেল ৩ টায় দিরাই উপজেলা গণমিলনায়তন হলে হেলভেটাস সুইস ইন্টারকোঅপারেশন ইইপি/সিঁড়ি-উন্নতি প্রকল্পের আওতায় গতদরিদ্র পরিবারের মধ্যে রিক্সা, ভ্যানগাড়ী ও ুদ্রব্যবসার পণ্য সামগ্রী বিতরণ পূর্ব আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রাজানগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়াম্যান আকিক আহমদ মধুর সভাপতিত্বে ও হেলভেটাস সুইস ইন্টারকোঅপারেশন ইইপি/সিঁড়ি-উন্নতি প্রকল্পের সহকারী প্রকল্প ব্যবস্থাপক মিলটন সরকারের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, তাড়ল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল হক তালুকদার, চরনারচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রতিকান্ত দাস, এনজিও সংস্থা ইরা’র প্রোগ্রাম কোঅর্ডিনেটর মনসুর রহমান।

আলোচনা সভা শেষে অতিদরিদ্র পরিবারের মধ্যে রিক্সা, ভ্যানগাড়ী ও ক্ষুদ্রব্যবসার পণ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।
অনুষ্ঠনে জানানো হয়, বাংলাদেশ সরকার এবং ব্রিটিশ সরকারের অর্থায়নে হেলভেটাস সুইস ইন্টারকোঅপারেশন এবং ইরা এর সহযোগিতায় সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই ও দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলায় ইকনমিক এমপাওয়ারমেন্ট অব দি পুওরেস্ট ইন বাংলাদেশ (ইইপি)/সিঁড়ি-উন্নতি প্রকল্প সাড়ে সাত হাজার অতি দরিদ্র পরিবারকে তাদের অতিদরিদ্র অবস্থা থেকে বের করে নিয়ে আসার জন্য এ প্রকল্প ২০১৩ সালের আগষ্ট থেকে কাজ করে আসছে।

অনুষ্ঠানে আরো জানানো হয়, উপকারভোগিদের দক্ষতা এবং চাহিদা অনুযায়ী উৎপাদনমূখী সম্পদ হস্তান্তরের মাধ্যমে এ পর্যস্ত দিরাই উপজেলার রাজানগর, চরনারচর, রফিনগর ও তাড়ল ইউনিয়নে ১০৭৫ টি নির্বাচিত অতিদরিদ্র পরিবারের মাধ্যে ৭৭৮ টি পরিবারকে ৩৮১ একর জমিতে বোরো ধান চাষের জন্য বীজ এবং জমির লীজ মূল্য, ৩০টি রিক্সা, ৩ টি ভ্যান, ৩৩ টি ক্ষুদ্র ব্যবসা, ২টি সেলাই ম্যাশিন, ২টি নৌকা, ১৪৯ টি ভেড়া, ১৭টি ছাগল, ১৫টি রাজ হাঁস এবং পারিবারিক সব্জি বাগানের জন্য সব্জি বীজ সরবারহ করা হয়েছে।

x