Skip to content

সন্ত্রাসীদের ধর্ম নেই, সীমানাও নেই

যারা প্রকৃত অর্থে সন্ত্রাসী তাদের ধর্ম নেই, সীমানা নেই বলে উল্লেখ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে এক অনির্ধারিত আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, সারা বিশ্বের সন্ত্রাসী কার্যক্রমে মুসলমানদের জড়িয়ে জঙ্গি আখ্যা দিয়ে হেয় করার চেষ্টা করা হয়। মুসলমানদের নিয়ম নৈতিকতা ও পবিত্রতা কখনও সন্ত্রাসবাদকে উৎসাহিত করে না। আর প্রকৃতই যারা সন্ত্রাসী তাদের কোনো ধর্ম নেই, সীমানাও নেই।
এর আগে দুপুরে ১১টায় প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

মন্ত্রিসভার অনির্ধরিত বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পৃথিবীতে মুসলিম সভ্যতা এবং চীনের যে ঐতিহ্য রয়েছে তা অন্য কারোর নেই। মুসলমানদের নিয়ম নৈতিকতা ও পবিত্রতা কখনও সন্ত্রাসবাদকে উৎসাহিত করে না।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, বাংলাদেশে ধর্মীয় জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসী কার্যক্রম কঠোর হস্তে দমন করা হচ্ছে। বর্তমানে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসী কর্মক‍াণ্ডের বিরুদ্ধে আমার কঠোর অবস্থান থাকায় গণমাধ্যমের প্রচারে জঙ্গিবাদ কথাটা কম আলোচনা হচ্ছে।

মন্ত্রিসভার অনির্ধারিত বৈঠকে আলোচনা সম্পর্কে একজন মন্ত্রী জানান, মেট্রোরেল প্রকল্প বাস্তবায়ন সম্পর্কে আলোচনা হয়েছে। এ সময় একজন মন্ত্রী তার সম্পদ রক্ষায় আতঙ্কের কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রীর কাছে। ওই মন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীকে মেট্রোরেল বাস্তবায়নে তার সম্পদ নষ্ট হয়ে যাবে বলে জানান।

মেট্রোরেল বাস্তবায়নে তার এ মৃদু আপত্তি নাকচ করে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী বলেন, মেট্রোরেলের রুটটি আমি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করেছি। প্রকল্প বাস্তবায়নে একটা স্থায়ী স্থাপনাও ধ্বংস হবে না।

x