Skip to content

দিরাইয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ২২

সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে তালই পুত্রার দুই গ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত ২৫ জন আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার (৫ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে নয়টার দিকে দিরাই উপজেলার করিমপুর ইউনিয়নের পুরাতন কর্ণগাঁও গ্রামে।

সংঘর্ষে ছেলে পক্ষের জীতেশ বিশ্বাস, স্বপন বিশ্বাস, রাজন বিশ্বাস, সাজন বিশ্বাস, দিবিন্দ বিশ্বাস, নিরঞ্জন বিশ্বাস, ধরনী বিশ্বাস, রেনু বিশ্বাস, শান্তনা বিশ্বাস, সাগর বিশ্বাস, কাজল বিশ্বাস ও মেয়ে পক্ষের জগবন্ধু দেবনাথ, রতিন্দ্র দেবনাথ, বাবুল দেবনাথ, বিপুল দেবনাথ, বনবামালি দেবনাথ, প্রদীপ দেবনাথ, শামল দেবনাথ, কান্ত দেবনাথ, রেখা দেবনাথ, বিজয়া দেবী, রুহিনী দেবী, সুচিত্রা দেবী আহত হন। আহতরা দিরাই সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

জানা যায়, ছয় মাস আগে পরিবারের অমতে বিয়ে হয়। এরপর কনে পক্ষের মামলায় বরের হাজতবাস। জামিনে মুক্ত হয়ে স্ত্রীকে নিয়ে সংসারও করছিলেন স্বামী। অতঃপর মেয়ের চাচাকে বরের ভাই তালই সম্বোধন করাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে অন্তত ২২ জন আহত হওয়ার ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে দিরাই থানা এসআই গোলাম ফাত্তাহ-এর নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

দিরাই থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ছয় মাস আগে পুরাতন কর্ণগাঁও গ্রামের লালমোহন বিশ্বাসের ছেলে রাজন বিশ্বাস ও শশাঙ্ক দেবনাথের মেয়ে শান্তনা দেবনাথ পরিবারের অমতে পালিয়ে বিয়ে করে। এ ঘটনায় মেয়ের পরিবার মামলা করলে প্রায় দেড়মাস হাজতবাস শেষে জামিন পায় রাজন বিশ্বাস। শান্তনা তার স্বামীর সঙ্গেই আছে। সংঘর্ষের আগের দিন রাতে ছেলের ভাই সাজন বিশ্বাস মেয়ের চাচা নীরেশ দেবনাথকে তালই সম্বোধন করাকে কেন্দ্র করে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এরই জের ধরে রোববার সকালে দুই পক্ষ মুখোমুখি সংঘর্ষে জড়ায়। দিরাই থানার ওসি (তদন্ত) আকরাম আলী বলেন, সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সুনামগঞ্জমিরর/এসএ

x