Skip to content

সিলেটের উন্নয়নে সরকার আন্তরিক

সরকারের ধারাবাহিক ও সমতার উন্নয়নে সিলেট সিটি কর্পোরেশন যথাযথ ভূমিকা রাখছে উল্লেখ করে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, সময় মতো প্রকল্প কাজ বাস্তবায়ন, দূরদর্শি, টেকসই উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহণের ফলে সিলেট নগরবাসী নানা সুবিধা পাচ্ছেন।

শনিবার (১১ জুন) দুপুরে প্রকল্পসমূহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। ভারত সরকারের অর্থায়নে সিলেট সিটি কর্পোরেশনে বাস্তবায়িত ৩টি প্রকল্পের উদ্বোধন করা হয়।

মন্ত্রী বলেন, সরকার উন্নয়ন-অগ্রযাত্রায় রাজনৈতিক বিবেচনা করে না। সারাদেশে সমতা ও অগ্রাধিকার ভিত্তিতে উন্নয়ন ধারাবাহিকতা চলমান রয়েছে। সিলেটের উন্নয়নে সরকারের আন্তরিকতার কথাও বলেন তিনি। বিশেষ করে সাম্প্রতিক বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সিলেটের রাস্তা-ঘাট মেরামতে বিশেষ সহযোগিতার আশ্বাস দেন তিনি।

ভারত সরকারের অর্থায়নে সিলেটের ঐতিহ্যবাহি ধোপাদিঘি, ক্লিনার কলোনি ও চারাদীঘিরপাড় স্কুলের উদ্বোধন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ভারত-বাংলাদেশের প্রতিবেশি বন্ধুপ্রতীম দেশ। প্রতিবেশি বন্ধু রাষ্ট্র হিসেবে ভারত বাংলাদেশের উন্নয়নের অংশীদার হওয়া কৃতজ্ঞতা জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, সিলেটে ভারত সরকারের এই প্রকল্পগুলো সফলভাবে বাস্তবায়ন হওয়ায় দুই দেশের সম্পর্ক আরও গভীর হয়েছে। তিনি বলেন, প্রতিবেশি রাষ্ট্র হিসেবে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশে ঐতিহাসিক বন্ধুত্ব আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ঢাকাস্থ ভারতীয় হাই কমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী। তিনি সময়মতো প্রকল্প সমূহের বাস্তবায়ন হওয়ায় সিলেট সিটি কর্পোরেশনকে ধন্যবাদ জানান।

সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী সভাপতির বক্তব্যে বলেন, সিলেটের উন্নয়নে ভারত সরকারের এই প্রকল্পসমূহ মাইলফলক হয়ে থাকবে। ধোপাদীঘি উদ্ধার ও সংরক্ষণ সংস্কারের ফলে সিলেট মহানগরের দীঘির শহরের অন্যতম স্মারক রক্ষা পেল। সিসিক মেয়র, সিলেটের উন্নয়নে অংশীদার হওয়া ভারত সরকারকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব মিসবাহ উদ্দিন চৌধুরী। অনুষ্ঠানের শুরুতেই প্রকল্প সংক্ষেপ তুলে ধরেন সিসিকের প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান।

প্রসঙ্গত, ভারত সরকারের অর্থায়নে ২৪.২৮৪৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ধোপাদীঘির তীর সংরক্ষণ, নগরের কাষ্টঘরে ৬ তলা বিশিষ্ট ক্লিনার কলোনী ও চারাদীঘিরপাড় মজলিস আমীন স্কুলের ৬ তলা বিশিষ্ট ভবনের নির্মান কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

সুনামগঞ্জমিরর/এসএ

x