বন্যায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৮, সিলেটেই ৪৬

১৭ মে থেকে ২৩ জুন পর্যন্ত সারাদেশ বন্যাকবলিত এলাকায় নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে ও বন্যাসৃষ্ট কিছু দুর্ঘটনায় ৬৮ জনের প্রাণহানি হয়েছে। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২৬ জন মারা গেছেন। এরমধ্যে সিলেট বিভাগেই রয়েছে ২৫ জন এবং আরেকজন রংপুর বিভাগের।

গত ১৭ মে থেকে ২৩ জুন পর্যন্ত ডায়রিয়া, সাপের কামড়, পানিতে ডুবে, ভূমিধসে এবং নানা আঘাতজনিত কারণে এসব মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের ইনচার্জ ডা. মো. জাহিদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এর আগে ১৭ মে থেকে ২২ জুন পর্যন্ত মোট ৪২ জনের মৃত্যু হয় বলে জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদফতর।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ১৭ মে থেকে ২৩ জুন পর্যন্ত ময়মনসিংহ বিভাগে ১৮ জন, রংপুর বিভাগে ৪ জন এবং সিলেট বিভাগে ৪৬ জনের মৃত্যু হয়। আর মৃতদের মধ্যে সিলেট জেলায় ১৬ জন, সুনামগঞ্জে ২৬ জন, হবিগঞ্জে একজন, মৌলভীবাজারে ৩ জন, ময়মনসিংহে ৫ জন, নেত্রকোনায় ৫ জন, জামালপুরে ৫ জন, শেরপুরে ৩ জন, কুড়িগ্রামে ৩ জন এবং লালমনিরহাটে একজন রয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, দেশে সবচেয়ে বেশি ৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছে পানিতে ডুবে। এসময়ে বজ্রপাতে মারা গেছেন ১৪ জন, সাপের কামড়ে একজন এবং অন্যান্য কারণে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

অধিদফতরের তথ্যমতে, গত ১৭ মে থেকে ২৩ জুন পর্যন্ত বন্যার কারণে পানিবাহিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজার ৪৮ জন। এদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ২ হাজার ৮৯৫ জন ডায়রিয়ায় ভুগেছেন। এছাড়া আরটিআইতে (শ্বাসতন্ত্রের প্রদাহ) ১১৮ জন, বজ্রপাতে ১৫ জন, সাপের কামড়ে ৪, পানিতে ডোবা ৪৩ জন, চর্ম রোগে ১৯৫ জন, চোখের প্রদাহে ৭৪ জন, বিভিন্নভাবে আঘাত পেয়েছেন ৬৪ এবং অন্যান্য সমস্যায় আক্রান্ত হয়েছে ৬৪০ জন।

সুনামগঞ্জমিরর/এসএ

x