Skip to content

১৯ জুলাই সারাদেশে বুস্টার ডোজ দিবস পালিত হবে

covid-19 coronavirus booster vaccination concept

করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে টিকা কার্যক্রমকে গতিশীল করতে আগামী ১৯ জুলাই সারাদেশে বুস্টার ডোজ দিবস পালন করার পরিকল্পনা নিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এ দিবসের আওতায় ১৮ বছর ও এর বেশি বয়সের সব নাগরিককে বুস্টার ডোজ টিকা দেওয়া হবে। তবে দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার ৪ মাস পর বুস্টার ডোজ নেওয়া যাবে।

বৃহস্পতিবার (১৪ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচির (ইপিআই) পরিচালক ডা. মো. শামসুল হকের সই করা এক চিঠিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

হাসপাতাল পরিচালক বা তত্ত্বাবধায়ক বরাবর পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ টিকা কার্যক্রম জোরদার করার জন্য আপনারা ইতোপূর্বে তৃতীয় ডোজ বা বুস্টার ডোজ সপ্তাহ সফলভাবে পালন করেছেন। এরই ধারাবাহিকতায় আগামী ১৯ জুলাই দেশব্যাপী কোভিড টিকার বুস্টার ডোজ দিবস উদযাপন করা হবে। কোভিড-১৯ টিকাদান সমন্বয় কমিটি এবং সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সবার সঙ্গে সমন্বয়পূর্বক ব্যাপক প্রচার প্রচারণার মাধ্যমে জনগণকে উদ্বুদ্ধ করে বুস্টার ডোজ দিবস পালন করবেন এবং সবার প্রাপ্য বুস্টার ডোজ দেওয়ার ব্যবস্থা নেবেন।

আরও বলা হয়েছে, বুস্টার ডোজ নেওয়ার জন্য উপযুক্ত প্রমাণ প্রদর্শন সাপেক্ষে (কোভিড-১৯ টিকার কার্ড বা সনদ) নিকটবর্তী টিকাদান কেন্দ্র বা বাংলাদেশের যেকোনো কোভিড-১৯ টিকাদান কেন্দ্র থেকে টিকাগ্রহীতা বুস্টার ডোজ নিতে পারবেন। সব টিকাদান কেন্দ্রে ফাইজার টিকা প্রদানের শর্তাদি অনুসরণ করতে হবে। সকাল ৯টা থেকে টিকাদান শুরু হবে।

চিঠিতে বলা হয়েছে, নিয়মিত কোভিড-১৯ এর প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেওয়ার স্বাভাবিক কার্যক্রম চলমান রেখে কোভিড-১৯ টিকাদানের বুস্টার ডোজ কার্যক্রম (এক দিন) পরিচালনা করতে হবে।

সুনামগঞ্জমিরর/এসএ

x