ঢাকার মহাখালীতে চালু হল ২১২টি আইসিইউ শয্যার হাসপাতাল

করোনাভাইরাস মহামারীর দ্বিতীয় ঢেউয়ে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে থাকা সংক্রমণে হাসপাতালে শয্যা সংকটের মধ্যে কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসায় ২১২টি আইসিইউ নিয়ে কার্যক্রম শুরু করেছে ডিএনসিসি হাসপাতাল।

রোববার মহাখালীতে ডিএনসিসি ডেডিকেটেড কোভিড-১৯ হাসপাতালের উদ্বোধন করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি বলেন, “এই হাসপাতালটি চালুর মাধ্যমে কোভিড রোগীদের সেবা আরও উন্নত হবে। এই হাসপাতালে ২১২টি আইসিইউ আছে। এইচডিইউতে আছে প্রায় আড়াইশ বেড।

“অন্যান্য বেডগুলোতেও সেন্ট্রাল অক্সিজেন আছে। সেখানে হাই-ফ্লো নেইজল ক্যানোলা ব্যবহার করতে পারব। অন্যান্য বেডে অক্সিজেন কনসেনট্রেটর আমরা দিয়ে দিচ্ছি।”

ঢাকা শহরে যতগুলো আইসিইউ আছে তার প্রায় সমান আইসিইউ এই হাসপাতালেই থাকছে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, “হাসপাতালের পাঁচশ বেডই আইসিইউ সমতূল্য কোভিড রোগীর জন্য।”

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে আগের চেয়ে ১০ গুণ বেশি রোগী আসছে জানিয়ে তিনি বলেন, “দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হলে গত ২০ দিনে যে পরিমাণ রোগী এসেছে, গত ১০ মাসের মধ্যেও সেই রোগী আসে নাই।”

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের যৌথ উদ্যোগে তৈরি এই হাসপাতালের পরিচালনায় থাকছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।

হাসপাতালের জমি, ভবন, বিদ্যুৎ ও পানির ব্যবস্থা করছে ডিএনসিসি। যন্ত্রপাতি, লোকবল, ওষুধসহ অন্যান্য কারিগরি সহায়তা দেবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

করোনাভাইরাস মহামারীর সময় এটি কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতাল হিসেবে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা দেবে। মহামারী শেষ হলে এটি জেনারেল হাসপাতাল হিসেবে পরিচালিত হবে।

কারওয়ানবাজারের আড়ত সরিয়ে আনতে সাত দশমিক ১৭ একর জমির ওপর গড়া বিপণী বিতানকেই কোভিড-১৯ হাসপাতালে রূপান্তরিত করেছে ডিএনসিসি।

হাসপাতাল উদ্বোধনের সময় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব লোকমান হোসেন মিয়া, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলমসহ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়তে থাকায় ২০২০ সালে এখানেই গড়ে তোলা হয়েছিল এক হাজার শয্যার আইসোলেশন সেন্টার।

বিডিনিউজ২৪/সুনামগঞ্জ মিরর/এসএন

x